বীরাঙ্গনার অটোবায়োগ্রাফী

Share Button

Wali-mahmud

ওয়ালি মাহমুদ

‘স্বাধীনতা এনেছি, স্বাধীনতা রাখবো’- দলবদ্ধ শ্লোগান শুনি। আমি জিগাই- স্বাধীনতা, তুমি কেমন আছো?
আর আমি?
এক ধ্বংসের মাঝে বেঁচে আছি। সমাজ আমারে আঙ্গুল দিয়ে দেখায়ে দ্যায়- সে তো বীরাঙ্গনা। আমার অপরাধ- আমার স্বামী যু্দ্ধে গেছে। কিন্তু কই? তাদের তো দেখায়না, যাদের জন্য পবিত্র শরীরের বসন টেনে-ছিঁড়ে কলংকের বসন পরায়ে দিল। আমার জীবনের সেই অভিশপ্ত কাহিনীর স্বীকৃতি দেয়া হল।

আমিও তো মানুষ। আমারও একটা মন ছিল। জীবনকে সাজাবার সাধও ছিল। স-ব নষ্ট হল। স্বপ্নগুলো পুড়ায়ে দিল। স্বাধীনতা দিবস আসে, স্বাধীনতা দিবস যায়। বিজয় দিবস আসে, বিজয় দিবস যায়। স্বাধীনতা কালে যারা মানুষ নামক বন্য শুকর ছিল; তারা এখন বক্তৃতা-বিবৃতি দেয়- মুক্তিযুদ্ধ তথা স্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখবে বলে। ইচ্ছে করে- জন্মদিনের পোষাক পরে প্রজন্মকে জানায়ে দিই তাদের ঘৃণ্য অপকর্মের কথা।

ধিক্ রাজাকার, ধিক স্বাধীনতা বিরোধী পশুদের। আমার বাসর হতে টেনে নিলি মোর স্বপ্ন-পুরুষ; যে আমারে দেখতে চায়নি। দেখতে চেয়েছিল স্বাধীনতাকে। সে দেখেনি। যুদ্ধ থেকে ফেরেনি। আমার আত্মার আকুতি- বিচার হোক তাদের, বিচার হোক।

এখনো নিস্তব্ধ রাতের কোন জেগে থাকা দ্বি-প্রহরে চাঁদের নীচে বসে  জোৎস্নার আলোয় স্বদেশ-কে জানান দিই- স্বাধীনতা হে স্বাধীনতা, তুমিই আমার স্বপ্নপুরুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

}
© Copyright 2015, All Rights Reserved. | Powered by polol.co.uk | Designed by Creative Workshop