মাসুদ আহমেদ এর কবিতা

Share Button

Lochon-Jumon-Bordoloi

সুখ

এইই সুখ
অথবা সুখ বলে কিছু নাই
আমি সুখ সুখ করে
আরো দূরে চলে যাই।

অসুখে বিসুখে সুখের শিশুকে
বুকে নেবো বলে দু‘হাত বাড়াই
অথচ কেবলি মন করে বলাবলি
সখা সুখ বলে কিছু নাই।

জিব তালুতে ঠেকিয়ে শিষ দেওয়া সুখ
রাস্তায় মেয়ে দেখে উল্লাস-ধ্বনি
বড় বাড়ী, দামী গাড়ী, জুয়েলারী প্রমুখ
ডিভানে হেলান দেওয়া সুন্দরী রমণী
পেটমোটা পোর্টফোলিও চাকরবাকর
লোকে বলে এসবই সুখের আকর।

কেউ বলে সহসা উদাসী হয়ে
কখনো যদি ফেরারী হাওয়ায়
উথল পাথল করে মনের আঁচল
নদী তীরে, সবুজ ঘাসের প্রান্তরে যদি
একা একা পথ হাঁটা যায়
তবে সেও সুখ বা সুখের কপোল
বেয়ে অশ্রƒধারার মত মনে হবে মন
যদি কাছে এসে দুটো কথা বলে প্রিয়জন।

এই অন্বেষণ, আলোর এষণায়
যা আমাকে প্রত্যহ সংগীত শোনায়,-
এই পথ হাঁটা, সিগারেট ঠোঁটে চেপে ধরা
সারা দিনমান  ম্রিয়মান সুখ সুখ করা।

এই সুখ
অথবা সুখ বলে কিছু নাই
আমি সুখের কেষ্ট হবো বলে
যতবার দু‘হাত বাড়াই,-
সম্মুখে সম্প্রসারিত চড়াই উৎরাই
আমি সুখ সুখ করে
আরো দূরে চলে যাই।

photography175
ভালোবাসা

স্বপ্নের হাত ধরে আজকাল ভালোবাসা হয়না বেসাতি।
স্থিরো ভব প্রিয়বর, বলেছেন কতিপয় বিজ্ঞ মহাশয়,-
প্রচলিত জপমন্ত্র শ্রেয়তর প্রজ্ঞাপনে মানব-প্রজাতি
যত পারো চেটেপুটে লুটে খাও, যত্রতত্র বিষয়-আশয়।।

আমিও ভেবেছি তাই,- লবনাক্ত সাগরের স্নিগ্ধ সমীরনে
কি লাভ আপ্লুত হয়ে,তার চেয়ে নি:সন্দেহে চতর্গুন শ্রেয়
নগরের বর্ধমান পোলিউশন নানবিধ যান্ত্রিক কারনে,
তারই মাঝে বেঁচে থাকা; প্রাপ্তিযোগে আনন্দ অপরিমেয়।।

পথপার্শ্বে পুষ্প আছে আর আছে স্বপ্তবর্ণ দেয়ালে গ্র্যাফিটি,
প্রাকারে উৎকীর্ণ করা আছে বেদনার নীল ঘন ছায়া।
নিয়ন আলোক ছটায়  ম্রিয়মান আকাশের তারা মিটিমিটি;
সোমরস জানে না কে কন্যা তার আর কে তার জায়া।।

প্রাকৃতিক দৃশ্যাবলী ভালো লাগা ভালোবাসা ইত্যাদি এবং
কোমলবৃত্তির কথা আর তুমি কুত্রাপি বোলো না আমায়।
শক্ত হাতে ছিঁড়ে ফেলে দেবো আমি প্রজাপতি পাখনার রং
একবিংশ শতাব্দীর ধাতব মানব সৃষ্ট আজ ভিন্ন বাসনায়।।

টাকা-কড়ি সবই হিসাবে মেলে, একটা হিসাব মেলে না যে শুধু
বাইরের দিনমান শেষ হয়ে গেলে, ম্রিয়মান ঘরে এলে ফিরে
শূন্য গেহ, প্রিয়জন স্বজন-বিহীন বুকের ভিতরে অগ্নি জ্বলে ধুধু
ভালোবাসা তবু কাছে আসে, আমারে ভাসায় তার নয়নের নীরে।।

bangladesh

অনেকদিন পর বাংলাদেশ

সব মানুষই বড় বেশী
পরিচিত বলে মনে হয়
মনে হয় রাতারাতি সবাই
অল্পবিস্তর বুড়ো হয়ে গেছে
আসবাবপত্রে দালানকোঠায়
আর স্মৃতির পর্দায়
অল্পবিস্তর ধূলোও জমেছে।

চারিদিকে লোকে লোকারণ্য
অরণ্য কেটে যে যেখানে পারছে
দু‘হাত জায়গায় বসত বাড়ী,
না বাড়ী নয়, ইমারৎ বানাচ্ছে।
চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট, কিন্ডারগার্টেন,
নার্সিং হোম, বিদেশে যাবার দালাল
রাস্তাঘাটে এদের বিজ্ঞাপন
প্রায়শই চোখে পড়ে আজকাল।

রাস্তায় অসংখ্য আঁকিবুকি
নির্দেশনা নিয়ম মেনে চলার
অথচ যে ডানে যাবে
সহজেই সে বামে নেয় মোড়
গাড়ীর ধাতব হর্ন, রিক্সার টুংটাং
ঠেলাওয়ালার ‘সামাল সামাল‘
এই সবকিছু এই সবকিছু
মিলে মিশে আমার বাংলাদেশ
আমার পুরোনো শহর।

সামরিক উত্থান-পতন, জাতীয় নেতৃবৃন্দ
ইতস্তঃ বিক্ষিপ্তদু‘একটি বুলেট
দরজায় হাতে লেথা
জাণলায় লটকানো অসংখ্য ‘টু-লেট‘
ব্যবসায়ীর নাম ফলক
মধ্যপ্রাচ্যের সংগে আত্মীয়তা খোঁজে
একদিন যে রমণী
শিষ দিলে রেগে যেতো
সে এখন সহজলভ্যা
রিকশায় উঠে আসে অতীব সহজে।

সমগ্র জাতি এখন মোড় নিচ্ছে
মুখের ভূগোল পাল্টাচ্ছে বাংলাদেশ
অর্থনৈতিক উন্নতি ক্রম বহমান
এদ্যবিত্ত হয় বিত্তবান, নয় নির্বিত্ত হবে
তিনিেট শ্রেনী ভেংগে দুটো হয়ে যাচ্ছে
সারা দেশে সবাই যুদ্ধমগ্ন
যে যেখানে পারছে সবাই
শাঁইশাঁই তলোয়ার শানাচ্ছে।

তবু প্রানান্ত এই যন্ত্রনায়
এই আলোকিত নগরে
কোনো এক নিষ্প্রদীপ ঘরে
কবিরা এখনো কবিতা লিখে যাচ্ছে
নাট্যকারেরা অ™ভূত  জীবন্ত সব
নাটক লিখে যাচ্ছে
গল্পকারেরা নিয়ত শোনাচ্ছে
অনন্য জীবনের অলেখ্য অনেক
স¤ভবনার আস্বাদে ভরা
নতুন প্রজন্ম আর
আগামী দিনের নব রূপরেখ।

তারা জানান দিচ্ছে
তারা বলছে জীবনের সংগে
এই অনাত্মীয় দেশের সংগে
তাদের আত্মীয়তা অশেষ।

এই সবকিছু
এই সবকিছু মিলে
এই সবকিছু মিলেমিশে
অনেকদিন পর বাংলাদেশ।

cms.somewhereinblog.net
স্বপ্ন দেখার অপেক্ষায়

আজ রাতে স্বপ্ন দেখবো বলে সাজিয়েছি ফুলের বাসর
সদ্য স্নাাত প্রসাধিত সারা অংগে মাখা দামী পারফিউম
ঘরেরা কোণায় ধূপধুনো, এদিকওদিক ছিটানো গোলাপ- আতর
কিন্তু কপাল এমনই মন্দ আমার আসে না চোখে একফোঁটা ঘুম।

স্বপ্ন দেখতে হলে ঘুমাতে হবে এ স্বপ্নের এক প্রি-কন্ডিশন
অথচ নয়নে আসে না একফোঁটা ঘুম, বলতো কি করি
হাঁই তুলে ঘুমানোর চেষ্টা করি বাসনায যাতনা ভীষণ
হয়তো স্বপ্ন এসে ফিরে চলে যাবে বলে যাবে ‘আই অ্যাম সরি‘।

স্বপ্নের দেখা পাবো বলে কতদিন রাত জেগে বসে থাকি আমি
সংগীতের মূর্ছণার মত শব্দ শুনি, ভাবি বুঝি তাহলে সে এলো
প্রত্যাশায় সারা বুকে তোলপাড় মরভূতে যেন সহসা সুনামি
না না সস্বপ্ন ঘরে আসে নাই দরজা জানালায় হাওয়া এলোমেলো।

ইনসমনিয়ায় ভুগি না আমি অথচ বুঝিনা কি আশ্চর্য্য ব্যাপার
যে রাতে স্বপ্ন দেখবো বলে  সারা ঘরে আলপনা আঁকি
সোনার হরিণ হয়ে মায়া মরিচীকা স্বপ্ন সুদুরে হারায় আমার
স্পার্ণড লাভারের মত স্বপ্ন আমায় শুধু দিয়ে যায় ফাঁকি।

কৈশোরের প্রারম্ভ থেকে স্বপ্নের সংগে ছিল ভালো অ্যাফেয়ার
যখনই চেয়েছি তাকে একান্তে কাছে এসে বলেছে সে ‘উই মনামি
যেখানে যখনই চাও চোখ মুদে আমায় যদি ডাকো একবার
মুদ্রিত নয়নের পেক্ষাপটে চকিতা হরিণীসমাএসে যাবো আমি‘।

তারপর জানি না যে কি যে হয়ে গেল চালদাল নুনের হিসাবে
কবিতা বা ন্স¦প্নের সংগে দেখাশোনা  ম্রিয়মান ক্রমশঃ বিলীণ
সময়কে যতই খুঁজি, সে হারিয়ে যায় প্রতিদিন জানি না কি ভাবে
স্বপ্ন দেখার তীব্র অভিপ্রায় মানচিত্র স্মৃতিতে হয়ে আসে ক্ষীণ।

স্বপ্ন হারিয়ে যাচ্ছে বিচলিত বিদ্যুৎপৃষ্ট আমি এই ভাবনায়
সবকিছু ছেড়েছুড়ে ক্লান্তির আচ্ছাদনে ঢেকেছি শরীর
দিবস অথবা রজনী যে কোনো সময় স্বপ্ন যদি বারতা পাঠায়
যদি সে আসে মৃদু পদভারে মুদ্রিত মত্রে যদি স্বপ্ন করে ভীড়

তাহলে স্পœকে দেখবো আবার সেই পুরোনো দিনের মত
আলিংগনে বদ্ধ করে মৌণবাক প্রিয়তমা স্বপ্ন সুহাসিনী
পাই বা না পাই তবু স্বপ্ন দেখার উচ্ছ্বসিত আনন্দে সতত
স্বপ্ন নিজেও জানে তার মত এত ভালো কাউকে বাসিনি।

হা ঈশ্বর আমাকে আবার স্বপ্ন দেখাও হাত ধরে নিয়ে চলো তবে
বার্ধক্যে একবার আমিও প্রমত্ত হবো স্বপ্নের বসন্ত উৎসবে।

123

স্বদেশ

পরবাসে থাকি বলে প্রায় তার কথা মনে পড়ে
পথের ধূলোর ঘ্রাণ বৃক্ষপটে পাখীর কূজন
আনমনে একা একা পথ হাঁটা আমার শহরে
সবুজ ঘাসের বুকে এলোমেলো আমরা দু‘জন।

স্টেডিয়ামে রকে বসে সেইসব কবিতা বাসর
উচ্চকিত কলহাস্য ঠোঁটে ধরা ধূঁয়ার কুন্ডলী
পাঞ্জাবীর বাঁ পকেটে পান্ডুলিপি আনন্দ আকর
অর্থহীন অহেতুক নানাবিধ কথার কাকলি।

ধানমন্ডী মেডিকেল সদরঘাটের হট্টগোল
যে দিকে তাকাই আমি অনিকেত প্রানের পরশ
শ্যামল রং তরুণীর দুষ্টিপাত কটাক্ষ বিলোল
বিদেশে কোথায় পাবো ফল্গুধারা সেই মধুরস।

সেইসব নানারং দিনগুলি এই পরবাসে
নিদ্রা  আর জাগরনে সম্মোহন স্বপ্নে করে ভীড়
পরিচিত মানচিত্র ম্লান হয়ে দু‘নয়নে ভাসে
ধনেধান্যে পুষ্পেভরা বাংলাদেশ অন্য পুথিবীর।

আর যে লাগে না ভালো এইসব সাজানো পশরা
আঁঁটঘাট জীবনের নিয়ন্ত্রিত পরিমিতি বোধ
ভালো লাগে না যে তার সাথে মিছে ঘর করা
কুয়াশার দেশে খুঁজি বাংলার কাঁচামিঠে রোদ।

ন্ধদয়ের অনিরুদ্ধ চিত্রকল্প প্রার্থনায় শেষ
সহস্র যোজন দূরে নিত্য খুঁজি আমার স্বদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

}
© Copyright 2015, All Rights Reserved. | Powered by polol.co.uk