সংহতি আরব আমিরাত শাখার বাঙালিয়ানা উৎসব

Share Button
  • লুৎফুর রহমান

যেখানে বাঙালি সেখানেই উৎসব। আগাম নববর্ষ উদযাপনে মেতেছিলো সংহতি সাহিত্য পরিষদ আরব আমিরাত শাখা। যান্ত্রিক সভ্যতার বাইরে যেতে চেয়েছেন তারা। ফিরে যেতে চেয়েছেন মাটির টানে-পরবাস থেকে-দেশে।

৭ এপ্রিল ২০১৭ শুক্রবার সংহতি সাহিত্য পরিষদ আরব আমিরাত শাখা আয়োজন করে বর্ণাঢ্য বাঙালিয়ানা উৎসবের। বৈশাখের পুঁথি, জারি, ভাটিয়ালি, লোকগীতি, কবিতা এবং লোকনৃত্যে মুখরিত হয়ে ওঠে শারজার শেখ ফয়সল এলাকা। ‘বিশ্ব মানব হ’বি যদি শ্বাশত, বাঙালি হ’ এ শ্লোগানে অনুষ্ঠিত উৎসবে ছিল প্রাণের আমেজ।

উৎসবে দেশীয় খাবার, পিঠা প্রদর্শনী এবং মুক্তিযুদ্ধের গান এনে দেয় ভিন্ন আমেজ। অনেকে পরবাসে বসেও যেন খুঁজছিলেন প্রিয় বাংলাদেশকে। নারীরা শাড়ি, আলতা, চুড়ি আর পুরুষেরা পানজাবী পরে এসে মেতে ওঠেছিলেন বাঙালিয়ানায়।

শিশুরাও এসেছিলো বাঙালি সাজে। প্রবাসে বেড়ে ওঠা প্রজন্মকে বাংলা সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করাতে এমন আয়োজনের প্রয়োজন জানালেন প্রবাসিরা।

সংহতির শাখা সভাপতি মোস্তাকা মৌলার সভাপতিত্বে ও শাখা সম্পাদক একাত্তর টিভি প্রতিনিধি লুৎফুর রহমানের সঞ্চালনায় জাতীয় সংগীতের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় উৎসব। উৎসব সমন্বয়ক ছিলেন সংহতি আমিরাতের সহ সভাপতি সৈয়দা দিবা।

‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো’ বন্দনায় গান পরিবেশন করেন আমিরাত প্রবাসি কণ্ঠশিল্পী রেহানা রহমান। তার সাথে সমস্বরে সবাই সুরের মূর্ছনায় মেতে ওঠেন। এরপর রেহানা রহমান গাইলেন যুদ্ধদিনের গান।

পরে রবীন্দ্র সংগীত ধরেন প্রবীণ শিল্পী ইয়াছমিন কালাম। ইয়াছমিন কালাম আবার গাইলেন ও আমার দেশের মাটি….ধন ধান্য পুষ্পে ভরা…..। সবাই সমস্বরে গেয়ে ওঠলেন গানগুলো।

কবিতার পশরায় সাজানো উৎসবে কাজলা দিদি কবিতার গান করেন জসিম উদ্দিন পলাশ। শম্পা শফিক গাইলেন চিরায়ত বাংলা গান। এরপর গলা ছেড়ে বাউল গানে সবাইকে মাতালেন কণ্ঠশিল্পী মাসুম।

তারপর আসলেন শিল্পী সাবরিনা মেহেরুন। তার গানে সবাই গলা ছেড়ে দিলেন। ভ্রমর কই গিয়া….কবিতা পড়ার প্রহর এসেছে… এসব গানে সবাই হয়ে ওঠেন নষ্টালজিক।

সাবরিনার গানে গীটার বাজালেন তার স্বামী আবির ইমরান। কোন মিস্ত্রী নাও বানাইলো গান নিয়ে আসেন সঞ্জয় ঘোষ। কণ্ঠ মিলান শম্পা শফিক ও রিক্তা।

গানের ফাঁকে চলে লোকনৃত্য। নৃত্যশিল্পী তিশা সেনের মমো চিত্তে গানের সাথে নৃত্য সবাইকে তাক করে দেয়। মাঝে মাঝে চলতে থাকে তবলা এবং গীটারের সাথে আবৃতি।

একে একে আবৃতি করেন প্রফেসর আবদুস সবুর, কবি মাকসুদা খানম, সৈয়দা দিবা, আহমেদ ইফতিখার পাভেল, আবদুল্লাহ শাহিন, মাহনুর রওশন মুমু ।

উৎসবে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিআইপি জেসমিন আক্তার, নারী উদ্যোক্তা শাফিয়া আক্তার আখি, এনআরবি ব্যাংক পরিচালক আবদুল করিম, শফিকুল ইসলাম, মশিউর রহমান, বেলায়েত হীরু প্রমুখ।

সংহতি সাহিত্য পরিষদ বিলেতের মূলধারার সংগঠন। এর শাখা সংগঠন আরব আমিরাত আগামিতেও মূলধারার কাজ করে যাবে জানালেন সংশ্লিষ্টরা।

উৎসবের সার্বিক কর্মতৎপরতায় ছিলেন আফজাল সাদেকীন আপলু, সঞ্জয় ঘোষ, জাবেদ আহমদ, সাদিকুর রহমান চুনু প্রমুখ।

বর্ণিল এ আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার ছিলো একাত্তর টিভি, প্রবাসের নিউজ ডটকম, পলল ডট কো ডট ইউকে।

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

}
© Copyright 2015, All Rights Reserved. | Powered by polol.co.uk | Designed by Creative Workshop