ফকির ইলিয়াস

ফকির ইলিয়াসের কবিতা ‘অক্ষরের মায়া’

এখানে আলোর মেলা, ডাকে এক সবুজ বিভায় অমর মাটির বুকে জেগে থাকে মুজিবের নাম কে এসে দাঁড়ায় হাতে নিয়ে সেই চিত্র প্রণাম আমি দেখি ভোর থেকে ঢেউ উঠে ঝড়ের সভায় । আর লিখে লালে লালে প্রাণপ্রিয় অক্ষরের মায়া আগস্টের মধ্যরাতে ঘাতকের ঘন-কালো চোখ তছনছ করেছিল যে স্মৃতি-স্বপ্ন প্রমুখ কেউ কি পেরেছে দিতে, মুছে সেই মহীরুহ ছায়া। প্রজন্ম আজও তো খুঁজে আন্তর্জালে তাঁর কররেখা মার্চের মহাকাব্য পড়ে পড়ে নদী যায় গন্তব্যে তার মুক্তির আলো খুঁজে মানুষেরা- দিশা’র প্রকার চন্দ্রও অনুভবে দেয় ...

Read More »

পঁচিশ বছরে নিউইয়র্কের বইমেলা

ফকির ইলিয়াস গেল সপ্তাহান্ত নিউইয়র্ক ছিল বইমেলার নগরী। ২০, ২১, ২২ মে -২০১৬ ছিল আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব ও বইমেলা। আয়োজক- মুক্তধারা ফাউন্ডেশন। এবারের বইমেলা উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। জ্যাকসন হাইটসের পিএস-৬৯ স্কুলে শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া এই মেলা চলে ২২ মে রোববার রাত পর্যন্ত। ২০ মে সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজা থেকে শুরু হয় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। রং বেরংয়ের পোশাক পরে, ব্যানার- ফেস্টুন আর পতাকা হাতে, ঢাক-ঢোল পিটিয়ে, নেচে-গেয়ে আর জাতীয় পতাকার ফিতা মাথায় বেঁধে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারী আমন্ত্রিত অতিথি, ...

Read More »

ফকির ইলিয়াস-এর কবিতা

কবিতার দুইপ্রহর তুমিই কি প্রথম শিখিয়েছিলে বাঁকের কৌশল কিংবা ফেরার দ্বিতীয় পথে ঢেলেছিলে কিছু নীলজল আমি তাতে দেখে মুখ,চিনেছিলাম দু’খের প্রণয় যেভাবে পাখিরাও উড়ে যেতে , আঁকে ছবি পালক সুতোয় মায়াডোরে বেঁধে। রাখে হাত উপাত্তের অদূর অতীতে আমিও বাড়িয়ে হাত,রাখি শীতে – আগুনের ত্রিশীতল গীতে বাঁধি রাগ, হ্রস্বরেখা আর কিছু ভুলের নিয়ম ভুলেই অতন্দ্র থেকে পোষি নদী, ওজনের ওম ।

Read More »

ফকির ইলিয়াসের কবিতা

পরিণত পালকের ভিড়ে থেকে যাও হে অগ্নি , ঈশানের রূপ আমি আবারও জলের নিশ্চুপ রেখা করে যাবো পরখ। বিনয়ে করে যাবো ঢেউয়ের প্রণয় বন্দনা , সয়ে সমূহ উত্তাপ। কিছু আলো ঢেলে দিয়ে ভাসাবো নিজেকে, জলে নেমে ভেজাবো পাঁজর আর উত্তরের বাঁকে ডুবে যাওয়া অষ্টম প্রহর। থেকে যাও হে বৃষ্টি , পরিণত পালকের ভিড়ে তোমার প্রতিমা দেখে ফিরবে নীড়ে পাখিরাও প্রবল প্রতাপে আমি তার সাক্ষী থেকে খুঁজে নেবো সুখ,সূর্যঅনুতাপে।

Read More »

ফকির ইলিয়াস এর কবিতা

কয়েকটি ভোরের ইতিহাস আমাদের আলোচনা চলছিল ঘরের সমুদ্রসীমা নিয়ে। আর কিভাবে বৃষ্টি গড়িয়ে পড়বে পাতার চালায়, তা নিয়েও ভাবিত ছিলাম আমরা তবে এভাবে ঘর বদলে বাধ্য হবো , তা কখনো কল্পনায় ছিল না। কয়েকটি ভোরের ইতিহাস ও এর মধ্যে পড়ে নিয়েছিলাম আমরা। সূর্য উঠে কাকে প্রথম স্পর্শ করে, কোনো পতাকা মোড়া সকালে একজন যোদ্ধাকে কিভাবে সমাহিত করা হয় এর দৃশ্যাবলি ও খুব কাছে থেকে দেখে নিয়েছিলাম । একটি রুমাল উড়াতে উড়াতে। পোড়া ঘর বিচ্ছিন্ন আগুনের ঘ্রাণ রেখে যাবার পর ও ...

Read More »

উপজাতি

ফকির ইলিয়াস গাছের ভেতরে গাছ। টবের ভেতরে টব। নিজস্ব রং, রূপ সবই আছে। তবু অন্য গাছে জন্মায় বলে আমরা তাকে বলি পরগাছা অথবা পালিত বনসাই। মানুষ কোনো রাষ্ট্রে কখনওই পরমানব-পরমানবী নয়। কিংবা যে নদী আমাদের সুখ অথবা দুঃখ বয়ে যায়, তার বুকে দেখি না কোনো আদিবাসী জলের ঢেউ। তবু মাটি ভোগে, আমরা বার বার বিভক্ত করি আমাদের জাতিসত্তা। একই সূর্যের আলো থেকে কিছু মানুষকে বঞ্চিত করার জন্য প্রত্যহ খুলে বসি নগ্ন রাজনীতির খাতা।

Read More »

শিকল

ফকির ইলিয়াস এ নগরে আর কোনোদিনই ফুটবে না ফালগুনের ফুল। বসন্তের বিকেলকে কাছে টেনে কোনো প্রেমিকা তুলবে না সুর, হাতের সেতারে। বিষয়গুলো জানার পর একজন বৃদ্ধা কেবলই হাসতে থাকেন। তৈলবিদ সমাজকর্মীরা এগিয়ে আসেন তার সাহায্যার্থে। এবং বলেন, মানসিক চিকিৎসা দরকার। ডাক্তার আসার পর বাকরুদ্ধ বৃদ্ধা শুধুই তাকিয়ে থাকেন। ডাক্তার দেখেন, বৃদ্ধার দুহাতে জমে আছে চল্লিশ বছরের কালো জিঞ্জিরের দাগ।

Read More »

ভাষাবিন্দু

ফকির ইলিয়াস আমাদের অর্জিত অহংকার কয়েক ফোটা বৃষ্টির ধ্বনি। পাখির সাথে সবুজের কথোপকথন। ‘ভালো আছি প্রিয় নদী’- সম্বোধনে ভরাট বসন্তে, সুরমায় পা ভেজানো কিশোরীর উচ্ছ্বাস। ভুলের গর্বিত নায়ক-নায়িকা হয়ে বেঁচে থাকা আমাদের এক ধরনের সুখ। ভুল পথে হেঁটে যাওয়া বাউল, যে পলাশ-শিমুল দেখে লাল রঙের বন্দনা গায়, আমরা হয়ে থাকি তারও মুগ্ধ শ্রোতা। সূর্যের দিকে মুখ করে যে ফুল ফোটে থাকে পূর্বাচলে, আমাদের ঘর জুড়ে মেঘ নামে মধ্যরাতে- ঘন এক ছায়ার বদলে।

Read More »

বাড়ি

ফকির ইলিয়াস অনেক আগেই গ্রহ থেকে মুছে গেছে চিঠির প্রচলন। ঠোঁটে অক্ষর নিয়ে উড়ে যেতো যে পাখি, তার জন্য আর অপেক্ষা করে না বুকের চলনবিল। শাপলা ফোটা ভোরের বিনয় এখন আর গোণে রাখে না প্রেমের নামতা। মরচে ধরা পেরেক দেখে আমরা জেনে যাই, ঘরটির পুর্ননির্মাণ দরকার। ক’টি বেডরুম হবে, কিংবা ক’টি বাথরুম, তা নির্ধারণ করে দেয় গুগল ডট কম। ঠিকানা এখন এ্যাট দ্যা রেট। আলাপন ভুলে গিয়ে রাতের সাথে সমবেত জোনাকীরাও সেরে নিচ্ছে গুচ্ছ গুচ্ছ এসএমএস বিনিময়।

Read More »

মাফলার

ফকির ইলিয়াস ওম দেবে বলে আমাদের গলা পেচিয়ে রেখেছে বিশ্বব্যাংক। পশমী উলের ভেতর লুকিয়ে আছে আই এম এফ- এর ট্যাগ। ঋণের অহংকার নিয়ে আমরা নির্মাণ করছি নতুন আরেকটি মধুমতি সেতু। এর আগে নৌকা বেয়ে নদী পাড়ি দিতেন যে মাঝি, তিনিও এখন মাজদা গাড়ী কেনার স্বপ্ন দেখছেন। গলা ঝেড়ে পিতামহও পরখ করছেন বুকের হলুদ কফ। দেনার প্রতি আপাততঃ কোন ক্ষোভ নেই। ঋণের বোঝা এভাবেই না হয় সমৃদ্ধ করুক তিন পুরুষের দায়বসতি।

Read More »
}
© Copyright 2015, All Rights Reserved. | Powered by polol.co.uk | Designed by Creative Workshop