কবিতা

বিরস জীবন ও বোধের আকাশ

খালেদ রাজ্জাক পেরেক পেরেক জুড়ে, বিপন্নসব কাঠের মায়া ড্রয়িংরুমে হাসে। সূক্ষ্ম সময় পোড়ে, বিরস জীবন পাল্টানো হয় রঙিন ফ্লাওয়ারভাসে! বিপন্ন কাঠ প্রেমের কপাট কোন আকাশে ওড়ে? নাজুক মনের বিব্রতসব করুণ বোধের ফাঁসে? সম্প্রীতি, আর ভালোবাসার অবচেতন ঘরে: বৃক্ষরা ক্ষয় ফার্নিচারে, মন ক্ষয়ে যায় পাশে!  

Read More »

সন্তানের গ্রাম

খালেদ রাজ্জাক জননী শহরবাসী হলে সন্তানের গ্রামে নেমে আসে কান্না অশ্রুপাতে শুকিয়েছে একটা পেঁপেগাছ অকাল শিতের শুষ্কতায় কাঁপে দূর্বালতা জননীর ভালোবাসা পেলে তারা কি ফিরবে না পুনরায় সবুজ গৌরবে? সন্তানের গ্রামে এখন অশ্রুত কান্না জননীর স্নানোত্তর ভেজা কাপড়ের ফোঁটা ফোঁটা জলের আশায় ব্যাকুল উঠান বাংলাদেশ ফিরে আয় আষাঢ়ে শ্রাবণে        বৃষ্টির ধারায় শহরে আগুন শহরে আগুন

Read More »

চাই চাই

খালেদ রাজ্জাক উষ্ণ হাতছানি চাই শরতের শাড়ি খুলে কাঙ্ক্ষিত সকাল আর শীতরাত্রিদের পরতে পরতে চাই ওম পাবো? মাটিতে শিকড় চাই যেতে চাই গভীরে গভীরে মাথায় গজাবে পাতা -সুন্দর সবুজ হয়ে যাই স্বর্ণলতা-আচ্ছাদিত সুপুরুষ? অস্থির জীবনে চাই জ্যামিতিক ঘুম বহুদিন ঘুমাই না—কয়েক দশক! ঘুম ঘুম ঘুম… পাবো?

Read More »

অষ্টপ্রহর জুড়ে মৃত্তিকার ধূসর পরিধি

ওয়ালি মাহমুদ শুনছো সুনাই, লুলার জটরে ভাসে বেহুলার ভেলা। এখানে বাড়তি জলের তলে জল। রৌদ্র বিম্বিত হয়ে তরঙ্গে নামে, আর গড়ে উঠে কানাকানির বাজার। থৈ থৈ স্রোত ভেঙ্গে তীরে এসে বিশ্রামে মজে, কবিতার অষ্টপ্রহর। ওখানে তুমি কে পুরুষ? অসীম আকাশ দেখার চেষ্টা করো সসীম আন্ধা চোখে। পৃথিবীর দীর্ঘতম বালুচরে আর হাঁটতে যাইনা। শুধু হাত রাখি। হৃদয়ের মরমী অংশে আমার গ্রহন লেগেছে। যেমন, অতীতের বিপরীতে প্রবাস ফেরত কোন, হোদ্দর বর্তমান হাত রাখে হাতে। এক এক করে অধ্যায় স্থান নেয়, সাদা কাগজের ...

Read More »

তত্ত্বের উপাত্তে অদৃশ্য নিরন্জন

ওয়ালি মাহমুদ পড়শীনগরের মারেফত মহল্লায় বৃক্ষরোপন কর্মসূচীতে বপন করি- দেহ তত্ত্বের বীজ। হায়া-শরম পানি ঢালে ঝুরি মাঠির চারিদিকে। গরছি দিয়ে বেড়া দেয় তত্ত্বকথা। লম্বালম্বি সূর্যালোকের আয়তক্ষেত্রটি প্রার্থনা করে রুহের রূহানীর। তুরপাহাড়ের শীর্ষ-দেশে আশ্রিত হয় আমার কবিতার নিগূঢ়তত্ত্ব। উপাত্ত সাগরের ঢেউয়ের উপরে বসে কল্পনার রাইয়ত। বীজটি এখন ’পরাহ্নের চারা হয়ে ফুলের আশায় পন্থ পানে চেয়ে থাকে। ভ্রমরার বংশ লতিকায় বাঁধে দুল, নাকেতে নোলক। মুসা নবী বেহুঁস হইন, শুইয়া রইন, দেখিয়া দয়ালের ঝলক। ও কবিয়াল, কি কথা লিখ তুমি রোধস্-এ বসি। অন্ধকার ...

Read More »

বীরাঙ্গনার অটোবায়োগ্রাফী

ওয়ালি মাহমুদ ‘স্বাধীনতা এনেছি, স্বাধীনতা রাখবো’- দলবদ্ধ শ্লোগান শুনি। আমি জিগাই- স্বাধীনতা, তুমি কেমন আছো? আর আমি? এক ধ্বংসের মাঝে বেঁচে আছি। সমাজ আমারে আঙ্গুল দিয়ে দেখায়ে দ্যায়- সে তো বীরাঙ্গনা। আমার অপরাধ- আমার স্বামী যু্দ্ধে গেছে। কিন্তু কই? তাদের তো দেখায়না, যাদের জন্য পবিত্র শরীরের বসন টেনে-ছিঁড়ে কলংকের বসন পরায়ে দিল। আমার জীবনের সেই অভিশপ্ত কাহিনীর স্বীকৃতি দেয়া হল। আমিও তো মানুষ। আমারও একটা মন ছিল। জীবনকে সাজাবার সাধও ছিল। স-ব নষ্ট হল। স্বপ্নগুলো পুড়ায়ে দিল। স্বাধীনতা দিবস আসে, ...

Read More »

মোহনার খোঁজে

ওয়ালি মাহমুদ এই আমিও হাঁটি পুলাছড়ার পানি ভেঙ্গে তালে তালে, মোহনার খোঁজে। টিলাগুলোকে নাইয়ে যে স্রোত অন্ধ- নদীর জন্য। সেই দাদাবদিখা’র আমল হতে কিংবা আরও…। ক্রমবর্ধমান ইচ্ছা এখর হাটু হতে পায়া’র দিকে নামে। একপাশে পূনর্নিমানে ব্যস্ত শতাব্দী প্রাচীন বাঘমারা জামে মসজিদ। অন্যপার্শ্বে মৃত্যু হচ্ছে ফলিত শষ্যের। পৌষমাইয়া কামলার ঘামে দলিত হয় সদ্য প্রয়াত আমনের বুক। ছড়াহাটা মানুষটি তবু্ও থেমে নেই। অনুভূতির নিকট সমতলের গভীরতা ধীরে ধীরে বাড়ন্ত মনে হচ্ছে। মোহনা আর কত দুর? থামলেন। থেমে এমনতরো দৃষ্টিতে দেখলেন, যেন জনমের ...

Read More »

কবুল এবং শংকামুক্ত সম্পর্ক

ওয়ালি মাহমুদ অর্পিত অনুরোধ রাখতে পারিনা, তাই তোমার এতো অনুযোগ। পুড়েছে গহীন বলো-শুধু কি গহীন? আমি তো বলেছি,  আমি যে ভিন। করবির পাপড়িতে কুসুম ফোটে কি ফোটেনি দেখিনি যে চেখে। এতো কথামালার বিবর্ণ বেলা, কি গিয়েছি রেখে? বুকের আঙ্গিনায় যে ’নু আমার ধন। সুখের লাগি আমিনু হে, সপি দেহ-তনু-মন। যদি নদীর স্বচ্ছ ঢেউ’র জন্য বলতে পারি ভালবাসি। বৃষ্টির এক ফোটা কণার জন্য বলতে পারি ভালবাসি, তাহলে কেন পারবনা বলো হে  অনুক্ত অভিমানী। [ .. ] আমার সিনায় ভরে, হৃদয়ের কম্পিত ...

Read More »

স্বপ্ন রাখাল

এম মোসাইদ খান হাড়ি ভর্ত্তি তুলো মেঘের সাথে স্বপ্ন জমা ছিলো চোখের পাতায় বৃষ্টির শুরুতে সবই শূন্য চোখ দুটো বাধা পড়ে মরুর বুকে। ঝিনুকের পেটে ক্ষণ কাল নিদ্রা শেষে গা মুরা দিয়ে যখন উঠলো হেসে স্বপ্নরা মৃতে্যুর কাপন পেলো। ঘাস গালিচায় শিশিরের সাথে ভালবাসা বন্দক রেখে প্রেমের উদ্যানে স্বপ্ন রাখাল জীবন অভিধানে সময়ের পাঠদানে বাস্তবতার সাধ নিলো। হাওয়ার শরীরে বিরহী বেহলার রাগে প্রেম ভালবাসার আকাল কালে মুর্ছে যাওয়া সম্বাবনার তীব্রতায় পাড়ি দিয়ে অথৈই আধার। চলতে চলতে গোধুলী রং অভিমুখে বিশ্বাসে ...

Read More »

আলোর নগরে আধার চোখ

এম মোসাইদ খান  নগর মুখি কংকালের মিছিল বাড়ছেতো বাড়ছে ছোট বড় দালানের ভাজে ধুমায়িত স্বপ্ন ধরার হিড়িকে। খরা তপ্ত চোখে টগবগ ফুটে হাড়ি ভর্ত্তি ভাতের ফেন পোড়া মরিচের ঘ্রান। সহস্র চক্রের ভেতর ঘোর পাক খেয়ে ঝরে পড়তে পড়তে ঝুলে থাকে অস্তির শূন্যতায়। ঝড় বৃষ্টির রাত ঘন কুয়াসায় ইটের সিতানে ক্লান্তি পুতে কষ্টের বুকে জাগিয়ে রাখে গন্তব্যহীন অজগর পথের চিপি খোলার তীব্র কামনা। নিরানন্দ শোকে ভাসমান জনস্রোত নির্ঘুম আলো ঝলমল নগরীর কুলে। জন্ম গ্রাম পাখির কলতান সবুজ মাঠ উদাস নদী ভাবনার ...

Read More »
}
© Copyright 2015, All Rights Reserved. | Powered by polol.co.uk