কবিতা

রাহনুমা নূর এর কবিতা

পতাকার লালটুকু সবুজ পতাকার মাঝের যে রক্তিম সূর্য তাকে ছুঁয়ে দেখেছো কখনো? ১৯৭১ এর সেই ভয়াল দিনগুলো কে হয়তো শুধুই গল্পকথা ভাবো তোমরা। যুদ্ধ, বেয়নেট, ধর্ষণ , মুক্তিবাহিনী ,রাজাকার এখন শুধুই নাটক আর আলোচনার বিষয়। আজ যে সখের বশে গায়ে ভাষায় রাঙানো চাদর জড়িয়ে ‘থ্রি চিয়ার্স’ বলে চেঁচিয়ে ওঠো, তাতে ঠিক কতটা ইংরেজ হয়ে ওঠো ? কিংবা কতটা বাঙালি? ২১শের ভোর, ২৬শে মার্চের ছুটির সকালে খবরের কাগজ হাতে নিয়ে বেশ আয়েশ করে যখন ধূমায়িত কফিতে চুমুক দাও লাখো শহীদের স্বাধীন ...

Read More »

জালাল খান ইউসুফী’র স্বাধীনতা’র পুঁথিকাব্য

শোনেন ভাইরে ভাই-২ বলে যাই স্বাধীনতার কথা কেমনে আমরা একাত্তরে পেলাম স্বাধীনতা। আমরা অতীত কালে-২ ধনে মালে ছিলাম অনেক সুখি দুধে ভাতে সুখ শান্তিতে ছিলাম সকল লোকই। সেদিন ইংরেজ দলে-২ ছলে বলে চক্রান্ত করিয়া ১৭৫৭ সালে সুখ নিল হরিয়া। দুই’শ বছর ধরে-২ শাষণ করে বাঙালি জাতিরে ভারত বর্ষ ভাগ করে যায় দ্বিজাতির খাতিরে। হইল হিন্দুস্তান-২ পাকিস্তান নামে দু’টি দেশ ১৯৪৭-এ হয় ইংরেজ শাষণ শেষ। আমরা হইয়া স্ধাধীন-২ ভাবি সুদিন এলো বুঝি ফিরে কিন্তু আরেক অত্যাচারি ধরল মোদের ঘিরে। পশ্চিম পাকিস্তান-২ ...

Read More »

ভাবনার মানচিত্র

সুহেল ইবনে ইসহাক শুন্যতার মাদক নেশা গ্রাস করে হৃদয়টাকে… কুমারের দক্ষ হাতের মতন দেশটাকে গড়তে বসি , এর নাক,কান,নীল চোখ,সবুজ দেহ,লাল টকটকে উন্নত বক্ষ সবকিছুই অন্যবদ্য সৃষ্টি। তবু কেন এতো ভয়? সৃষ্টিশীল হাতের মিহিন কারুকাজ তবু উদাস থাকি সারাদিন। যতটা না ভাল লাগে নিজেকে দেখতে, তার চেয়েও ভাল লাগে তোমাকে দেখতে, তোমার কথা ভাবতে । নরম সবুজ ঘাস ছুঁয়ে মাটির মসৃন বুকে ভাবনার বীজ বুনি। উষ্ণ রোদ্দুর আর ঘাসের ছুঁয়াতে ভালবাসা প্রস্ফুটিত হয়। আচছা,সবাই কি এমন?সবাই দেশকে ভালোবাসি ? আর ...

Read More »

মাশূক ইবনে আনিস’র কবিতা

শেষ রাত্রির বিলাপ —————————- হৃদমহলে তোমার পদচ্ছাপ, তার উত্তাপে হিমালয়ে গলছে বরফ, জেগে উঠছি পূনর্বাসী মানুষের মত কৃষ্ণসাগরের জলে, আমার-যে আশ্রয় বড় প্রয়োজন: চৈতন্য-নিবাসী প্রিয়তমা দহনের জলে চোখ পোড়ে দিবানিশি,অনাথ আশ্রমের দিধান্বিত শিশুটির মত দাঁড়িয়ে আছি, আমি অপরাহ্নের অপাংতেয় আলোর মত ঝিলিক দিচ্ছি সন্ধ্যার আগমনী দুয়ারে দাঁড়িয়ে, তোমার দৃষ্ঠি- আকর্ষনে যদি দয়া বর্ষে কিঞ্চিত, আমার-যে দয়া বড় প্রয়োজন: নিমাই-নিবাসী প্রিয়তমা ভেনাসের অমর্ত্যলোক বহুদূর, আমি ঝড়ের তান্ডব সয়ে তোমার দেয়ালে ঠাই নেয়া সঙ্গীহীন সামান্য সোয়ামন পাখি, সর্গের সুনৃত সঙ্গমের লোভ আমাকে ...

Read More »

ওয়ালি মাহমুদ’র কবিতা

সুদীর্ঘ শব্দ-কথা স্বপ্ন-শুমারির দিনে কবিতারা জেগে থাকে প্রান্তিক স্বজনেরা হাত বাড়িয়ে রেখে দেয় নিঝুম পাঠ-প্রকাশের পয়মন্ত বেলায় সভার বিকেল হলে তবুও জমিয়ে রাখে..। হে জন্মভূমি আমার- যার বুকে জীবনের তিরিশ বছর জমা রৌদ্র ঢাকা, নৈ:শব্দের দুয়ার খোলে চেয়ে থাকা, যেন বা প্রিয়তমা মৃত্তিকায়-বেড়ে ওঠা-পথে দেশের কাছে জীবনের অনেক ঋণ যে গ্রামটি সুদীর্ঘ, হে শব্দ-মিতা আসবে সুদিন, শুধিবার দিন চির সবুজ প্রকৃতির পরিসরে দেখে রাখি মাঠ-ঘাট-শৈশব সব বাঁধা-ই সরিয়ে ভালবাসায়-সংহতিতে ভরা প্রিয় স্বদেশ একদিন শরদিন্দু ছাড়িয়ে আমিও যে কোল নেবো, আশ্রিত ...

Read More »

কামরুন নাহার রুনু’র কবিতা

তুমি এবার জাগো! চশমাটা মেঝেতে পড়ে ফাটল দিল চার-পাঁচটা, তাই আজকাল ঘোলাটে সব! দেশ স্বাধীন হবার পর থেকে আমি এখনও ঘুমাই নি। আমি কেবল জেগেছিলাম সোনালী শস্য দেখার জন্য! শুধু চেয়েছিলাম, মানুষের মাঝে জাগুক হৃদ্যতা! চাইনি এমন সমাজ, যেখানে কেবল জন্মেছে, নষ্ট ভ্রুণ! পায়ের দগ্ধ ক্ষতে এখনও জ্বালাপোড়া করে এখনও শুশ্রূষার অভাবে গায়ের চামড়া চিংড়ির খোসার মত ফুলে ফুলে উঠে! আমি কেবল দেখে যেতে চেয়েছিলাম; সবুজ মন নিয়ে মানুষ কেমন মানুষের মাঝে বেঁচে আছে; দুধে-আলতা রঙে মানুষের বিশ্বাসী রোদ গায়ে ...

Read More »

মজিবুল হক মণি’র কবিতা

যখন কবিতা ছিলনা যখন কবিতা ছিলনা, আবে কায়সারের নহরে- ইবলিশের বিচরণ ছিলো। মন্দাকিনীর তীরে- অভিশপ্ত রাবনের-নিঃশ্বাস ছিল। যখন কবিতা ছিলনা, ডায়নসরের পায়ে পিষে- মরে যেতো শ্যামল তৃণের নিষ্পাপ হাসি। বৃন্দাবন কেঁপে উঠতো রাক্ষসের হুংকারে- স্তব্ধ হতো রাই-কানাইয়ের অমৃত আশনাই-লীলা। যখন কবিতা ছিলনা, হেরা গুহায়- জিব্রাইলের হাজিরা ছিলনা। ঐশী বানীর অমিয় ধ্বনীতে ছিলনা শীলার মুগ্ধতা। বেথলেহ্যামের রাখাল কূটির আলো করে কুমারী ম্যারির কোলে আসতো না মৃত্যুঞ্জয়ী যিশু। যেখানে কবিতা নেই- জনপদ হয়ে যায় চিড়িয়াখানা। মানুষের কথাগুলো জানোয়ারের চিৎকার হয়ে যায়। যেখানে ...

Read More »

দেখিনি স্বাধীনতা

গোলাম সাদত জুয়েল অামি স্বাধীনতা দেখিনি দেখেছি পরাধীনতার শংখল। আামি শোষণ দেখিনি দেখেছি শোষিতের আর্তনাদ অামি স্বাধীনতার আলো দেখিনি দেখেছি যুদ্ববিধ্বস্ত দেশের রাতের অন্ধকার। অামি যুদ্ধ ধর্ষণ দেখিনি দেখেছি ধষিতের করুন চাহনী অামি বাংলাদেশ দেখিনি দেখেছি পশ্চিম পাকিস্তানিদের শোষণ। অামি ৯ মাসের যুদ্ধ দেখিনি, দেখেছি ৩৩ লাখ শহিদের অাত্বত্যাগ। অামি যোদ্ধাপরাধীদের বিচার দেখিনি দেখেছি তাদের ফাঁসির রায়।। আমি দেখিনি ও দেখেছি অনেক কিছু , তারপরও অপলক চোখে দেখি আমার স্বাধীনতা।।।।।

Read More »

‎ফজিলাতুন নাহার রুনু‎’র কবিতা

ঘৃণায় জ্বালিয়ে দেবো যখন মাঝির ছদ্মবেশে মাঝ নদীতে আমার দেশপ্রেমিক ভুলু ভাইকে ওরা খুঁচিয়ে মারে রক্তে,জলে মিশে যেতে যেতে ‘জয় বাংলা’তখন শ্লোগান হয়ে চারদিক কাঁপিয়ে দিয়েছে- জানামাত্রই আমি রাজাকারদের ঘৃণা করতে শিখি আপন চাচাতো ভাইদের মুক্তিযুদ্ধে গেছে বলে মেয়েদের মতো শাড়ি পরার পরেও খোঁপা হাতড়ে গুপ্তধন পেয়ে যাবার মতো উল্লাস করতে দেখি- তখন থেকেই রাজাকার আমার ঘৃণার পাত্র। যখন সবে শাড়ি ধরা মেয়েরা দাদীর শাড়ি পড়ে অযত্নে চুলে,চেহারায় জট, জরা আনতে চেয়েছে- মুক্তি খোঁজার চেষ্টাতে মুরগির খোঁয়াড় খুলে তারা ডিমগুলো ...

Read More »

লীনা ইয়াসমীন এর একগুচ্ছ কবিতা

প্রান্তিক আপন তুমি তো সেই একজন যে আমায় সহস্র বিষণ্ণ প্রহর থেকে হাত ধরে বের করেছো একটানে , পেয়েছি এক বিশেষ ভুবন। তুমি এমন একজন নিজেকে হারাই যার প্রদীপ্ত চোখে আটকে থাকে মন ঐ নিভাঁজ কেশে তুমি আমার প্রান্তিক আপন।   প্রিয়তমেষু সময় আমাদের বিপক্ষে উড়ে চলছে হারানো পৃথিবীর পানে স্তব্ধ তুমি আমিও নীরব এক-ই সাথে। এভাবেই হয়তো কোন কোন সম্পর্কের বিলুপ্তি রচনা হয় সময়ের কালস্রোতে। এখনো হারানো পৃথিবী ছুঁতে খানিকটা পথ বাকী হৃদয়ের প্রানান্ত আকুতি প্রিয়তমেষু চলো বেঁচে উঠি। ...

Read More »
}
© Copyright 2015, All Rights Reserved. | Powered by polol.co.uk